দিনাজপুরে মশিউর হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, দুজনের যাবজ্জীবন

চৌধুরী নুপুর নাহার তাজ দিনাজপুরঃ
দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলায় ৮ বছর পূর্বে পারিবারিক দ্বন্দ্বের জেরে এক ব্যক্তি হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড ও দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক। এ ছাড়াও অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিনজনকে খালাস প্রদান করা হয়। 

 রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৩টায় দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-২ আনোয়ারুল হক এ রায় প্রদান করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদহাট গরুহাটি এলাকার মৃত আফিজুল টিকরীর ছেলে আক্কাছ আলী ওরফে আলতু। 

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন বোচাগঞ্জ উপজেলার ধনতলা দফাদারপাড়ার মৃত নেফাজ উদ্দীনের ছেলে মো. রিয়াজুল ইসলাম ওরফে মশা ও একই উপজেলার মুর্শিদহাট হাজীপাড়ার আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে মো. সোহেল। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ১ লাখ জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।

দিনাজপুরে আদালত পুলিশের পরিদর্শক ইসরাইল হোসেন জানান, নিহত ও আটক আসামিদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক দ্বন্দ্ব ছিল। ২০১২ সালের ১৪ জুলাই বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদহাট এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে মশিউর রহমান জেন্টেলকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। 

পরদিন ১৫ জুলাই নিহতের পিতা আব্দুর রহমান বাদী হয়ে সাতজনের বিরুদ্ধে বোচাগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বিচার চলাকালীন মামলার এক আসামি মারা যান। আজ রবিবার দুপুরে বিচারক সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে একজনের মৃত্যুদণ্ড ও দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন। অপরদিকে মামলার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় একই এলাকার রেজাউল ইসলাম, মো. রুবেল ও রুমানা আক্তারকে খালাস প্রদান করা হয়।

রাস্ট্র পক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট মেহেরুল ইসলাম এর সাথে কথা বলে জানা যায় প্রেম ঘটিত কারনে এহত্যা ঘটে। অপরদিকে মৃত মশিউর রহমান জেন্টেল এর পিতা ও এ মামলার বাদী আব্দুর রহমান বলেন আমি  এ রায়ে অনেক খুশি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য