সৈয়দপুরে বিক্রি করতে এসে পুলিশের হাতে দুই চোর আটক,মোটরসাইকেল উদ্ধার

মিজানুর রহমান মিলন স্টাফ রিপোর্টারঃ
সৈয়দপুরে চোরাই মোটর সাইকেল বিক্রি করতে এসে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে ক্রেতা- বিক্রেতাসহ দুই চোর। এসময় উদ্ধার করা হয়েছে চোরাই মোটরসাইকেলটি। আজ সোমবার ভোরে শহরের নিয়ামতপুর বাস টার্মিনাল এলাকার হোটেল আল-

-ফারুকের সামনে চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় মোটর সাইকেল চোর শাহাদত হোসেন ওরফে নেহালকে (৩০) আটক করে পুলিশ। পরে তাঁর দেয়া তথ্যে শহরের নতুন বাবুপাড়া থেকে ক্রেতা সোহেল রানা ওরফে বাপ্পীকে (৩৬) আটক করা হয়। এব্যাপারে সৈয়দপুর থানায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, রোববার (৫জুন) রাতে সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক মো. আনছার আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় রাত্রীকালীন টহল দিয়ে শহরে টহল দিয়ে সোমবার ভোরে পাঁচমাথা মোড়ে অবস্থান করছিলেন তারা।  

এসময় সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো.  আবুল হাসনাত খান মুঠোফোনে তাদের জানান সৈয়দপুর বাস টার্মিনাল সংলগ্ন হোটেল আল ফারুক এর সামনে রাস্তার উপর

চোরাই মোটরসাইকেল বেচা কেনার জন্য দর কষাকষি  হচ্ছে। এমন সংবাদ পেয়ে 

এসআই মো.আনছার আলী সঙ্গীয় ফোর্সসহ ওই এলাকায় যায়। এসময় বাস টার্মিনাল এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ে একজনকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন তারা। এসময় ভোরবেলা মোটরসাইকেল নিয়ে বাস টার্মিনাল এলাকায় অবস্থান করার কারন জানতে চাইলে ওই মোটরসাইকেল আরোহীর কথাবার্তা ও সঙ্গে থাকা মোটরসাইকেল চোরাই সন্দেহজনক হওয়ায় মোটর সাইকেল আরোহী শাহাদত হোসেন ওরফে নেহালকে (২৫) আটক করা হয়। সে নীলফামারী শহরের বাবুপাড়া কবরস্থান মোড়ের বাসিন্দা রশিদুল ইসলামের পুত্র।

এসময় তার হেফাজতে থাকা কালো রংয়ের প্ল্যাটিনা মোটরসাইকেলসহ আটক নেহালের ট্রাভেল ব্যাগের ভিতরে থাকা গ্রীল কাটার মেশিন ও দুইটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।
এসময় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে জানায়, নীলফামারী সদরের

সরকারপাড়ার ইদ্রিস আলীর পুত্র মো.খোকন (৩২), রেলঘুন্টি কলেজ স্টেশন পাড়ার লাল মিয়ার পুত্র মো.শরিফুল ইসলাম (২৭) ও ভবানীগঞ্জের সাত্তারের মোড় এলাকার রজব আলীর পুত্র মমিনুরের (২৬) কাছ থেকে গত ৪ জুলাই নীলফামারী সদরের খোকশাবাড়ী হালির বাজারে ২০ হাজার টাকায় মোটরসাইকেলটি খরিদ করে। পরে সেটি বিক্রির জন্য 

সৈয়দপুরে আসে। এসময় ক্রেতার নাম জানতে চাইলে সে সৈয়দপুর শহরের নতুন বাবুপাড়া এলাকার মৃত সলিম উদ্দিনের পুত্র সোহেল রানা বাপ্পীর (৩৬) নাম জানায়। পরে তাঁর দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ভোরেই নতুন বাবুপাড়া এলাকার বাসা থেকে সোহেল রানা বাপ্পীকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় ৫ জনকে আসামী করে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। 

মামলায় ধৃত দু জনকে গ্রেফতার ও অপর তিন আসামি খোকন (৩২), শরিফুল (২৭) ও মমিনুরকে (২৬) পলাতক দেখানো হয়েছে।

জানতে চাইলে সৈয়দপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আতাউর রহমান মোটরসাইকেল চোর আটকসহ মোটরসাইকেল উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন মামলার পলাতক অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য