রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন থানা পুলিশ কতৃক উদ্ধার, মামলা ও গ্রেফতার

রেদওয়ান হিমেল রংপুরঃ
গত শুক্রবার (১৭ জুলাই) রংপুর মেট্রোলিটন হারাগাছ থানা পুলিশ কর্তৃক উক্ত থানাধীন জমচওড়া বাজারস্থ রুবেল স্টোর (গালামাল)-এর দোকানের সামনে পাঁকা রাস্তার উপর থেকে ৪০ (চল্লিশ) বোতল কোডিন যুক্ত ফেন্সিডিল, একটি কালো রংয়ের ১৫০ সিসি মোটরসাইল যার মূল্য অনুমান-১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকা ও একটি বেগুনী রংয়ের স্মার্ট ফোন উদ্ধারসহ 

আসামী ১. মোঃ আসাদুল ইসলাম (২২), পিতা- মোঃ নজরুল ইসলাম, স্থায়ী : গ্রাম- সিংগীমারী (ডাঙ্গাপাড়া) , থানা- হাতিবান্ধা, লালমনিরহাট এবং ২. মোঃ রুমন ইসলাম (২০), পিতা- মোঃ মানিক মিয়া, স্থায়ী : গ্রাম- দক্ষিন গড্ডিমারী, থানা- হাতিবান্ধা, লালমনিরহাট-কে গ্রেফতার করা হয় এবং গ্রেফতারকৃত আসামীর সাথে অজ্ঞাতনামা আসামী মোঃ আনারুল ইসলাম (২৬), পিতা- তফসির উদ্দিন, স্থায়ী : গ্রাম- বাড়াইপাড়া, উপজেলা/থানা- হাতিবান্ধা, লালমনিরহাট এর বিরুদ্ধে হারাগাছ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) সারণি ১৪(খ)/৪১ ধারায় মামলা রুজু করা হয়।

গত ১৭ জুলাই রংপুর মেট্রোলিটন হারাগাছ থানা পুলিশ কর্তৃক উক্ত থানাধীন জমচওড়া গ্রামস্থ আসামী মোঃ আশিকুর রহমান আশিক (৪৪), পিতা- মৃত নুর হেসেন, স্থায়ী : গ্রাম- গুলাল বুধাই (জমচওড়া) , থানা- হারাগাছ, রংপুর এর বসত বাড়ীর শয়ণ ঘরের খাটের নিচে থেকে ১০ (দশ) বোতল কোডিন যুক্ত ফেন্সিডিল উদ্ধার এবং তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে এ সংক্রান্তে হারাগাছ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) সারণি ১৪(খ) ধারায় মামলা রুজু করা হয়।

গত ১৭ জুলাই রংপুর মেট্রোলিটন হাজিরহাট থানা পুলিশ কর্তৃক উক্ত থানাধীন উত্তম মধ্যপাড়া জামে মসজিদের বারান্দা থেকে বাইসাইকেল চুরির চেষ্টার অপরাধে আসামী মোঃ মামুনুর রশীদ(২২), পিতা-মোঃ সাইদুল ইসলাম, গ্রাম-বিন্নাটারী, থানা-হাজীরহাট, রংপুর মহানগর, রংপুর-কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে এ সংক্রান্তে হাজিরহাট থানায় দন্ডবিধি ৩৭৯/৫১১ ধারায় মামলা রুজু করা হয়।

গত ১৭ জুলাই রংপুর মেট্রোলিটন হাজিরহাট থানা পুলিশ কর্তৃক উক্ত থানাধীন সিট উত্তম গ্রামস্থ বাদীর বসত বাড়ীর শয়ন ঘরে প্রবেশ করে জোড়পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টার অপরাধে আসামী মোঃ আবু সাঈদ(১৯), পিতা-মোঃ নুর ইসলাম, সাং-সিট উত্তম, থানা-হাজীরহাট, রংপুর মহানগর, রংপুর-কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে এ সংক্রান্তে হাজিরহাট থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধীত/০৩) এর ০৯(৪)(খ) ধারায় মামলা রুজু করা হয়।

অপরদিকে গত ১৭ জুলাই  রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ (উত্তর ও দক্ষিণ) এবং সকল থানার চেকপোস্ট ডিউটি কর্তৃক সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ এর আওতায় আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ৯৩ টি মামলা দায়ের করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য