লালমনিরহাটে কর্মহীন মোটর শ্রমিকদের ত্রাণের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

হাসানুজ্জামান হাসান,লালমনিরহাটঃ লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ত্রাণের দাবিতে মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করেছে কর্মহীন মোটর শ্রমিকরা। রোববার (১০মে) দুপুরে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ত্রাণের দাবিতে শত শত মোটর শ্রমিক লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কের তুষভান্ডার ওয়ালটন শো-রুমের সামনে ত্রাণ ও কাজের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন অসহায় দুস্থ কর্মহীন শ্রমিকরা। এ সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ করে কাজের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন শ্রমিকরা। তাদের অভিযোগ, এখন পর্যন্ত তারা সরকারি কোনো ত্রাণ পাননি। এদিকে সড়ক অবরোধের খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাত ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) জাহাঙ্গীর হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে মোটর শ্রমিকদের কাজ ও ত্রাণ দেওয়ার আশ্বাস দেন। বিক্ষোভে অংশ নেয়া শ্রমিকরা জানান, প্রানঘাতি করোনা ভাইরাস সংক্রামন রোধে সরকারী গনপরিবহন বন্ধ ঘোষনা করায় দীর্ঘ দিন ধরে কর্মহীন হয়ে বাড়িতে অবস্থান করছেন শ্রমিকরা। কর্মহীন শ্রমিকদের সঞ্চিত অর্থ শেষ হওয়ায় তারা ত্রাণের জন্য গত একমাস আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার(ইউএনও) নিকট তাদের শ্রমিকদের তালিকা দিয়ে ত্রাণ দাবি করেন। সেই গত এক মাস ধরে আজ কাল বলে বিলম্ব করছে প্রশাসন। ফলে অনাহারে অর্ধহারে থাকা শ্রমিকরা সম্মিলিত ভাবে বাড়ি থেকে বের হয়ে মহাসড়কে ত্রানের দাবিতে বিক্ষোভ করেন। এক পর্যায়ে প্রচন্ড রোদে মহাসড়কে শুয়ে পড়েন শ্রমিকরা। এ সময় উভয় পাশে ট্রাকসহ শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে।মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন মুকুল বলেন, দেড় দুই মাস ধরে ঘরে বসে বসে সঞ্চিত আর ঋন করে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। ইউএনও ত্রাণ দিতে চেয়ে শ্রমিকদের তালিকা নিয়েছেন। কিন্তু সেই তালিকা নেয়ার একমাস অতিবাহিত হলেও ত্রাণের কোন খবর নেই। পরিবার পরিজন নিয়ে না খেয়ে মরার চেয়ে আমাদের কাজের জায়গা খুলে দেন। নয় তো ত্রাণ দেন। কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রবিউল হাসান বলেন, শ্রমিকদের তালিকা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে পাঠানো হয়েছে। সেখানে যাচাই বাছাই করে ত্রাণ দেয়ার কথা। পুলিশ ও এ্যাসিল্যান্ড বিষয়টি দেখছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য