আমি করোনা আক্রান্ত, হাসপাতাল হতে পালিয়েছি আমার চিকিৎসা দরকার

মোঃ শরিফ,নাটোর
২০-০৪-২০২০খ্রিঃ সরকারি স্বাস্থ্য সেবা বাতায়ন ৩৩৩ নম্বরে কল করে নাটোর আলাইপুর হতে আব্দুল করিম পরিচয়ে একজন জানান তিনি করোনা আক্রান্ত ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল হতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পালিয়ে এসেছেন। বর্তমানে শ্বাসকষ্টে ভুগছেন, তার জরুরী চিকিৎসা দরকার। বিষয়টি জানাজানি হলে, এখন পর্যন্ত করোনামূক্ত থাকা নাটোরের জন্য বড় দুঃসংবাদ হিসেবে দেখা দেয়। দ্রুত জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে উদ্ধারের জন্য যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সে কোন যোগাযোগ করেনা। সংবাদ পেয়ে নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য জনাব শফিকুল ইসলাম শিমুল উদ্ধারকারী দলসহ তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করলে সে ৪ বার মিথ্যা ঠিকানা প্রদান করে হয়রানি করে। কোথাও তাকে না পেয়ে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে তার প্রদত্ত ঠিকানাগুলো মিথ্যা বলে প্রতীয়মান হয়। জনাব মোঃ আবুল হাসনাত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, নাটোর সার্কেল, নাটোর এর নের্তৃত্বে জেলা পুলিশের অভিযানে ২০-০৪-২০২০খ্রিঃ সন্ধ্যা ০৭.৩০ ঘটিকায় নাটোর সদর থানার লক্ষীপুর টলটলিয়া পাড়া হতে তাকে মোবাইলসহ আটক করা হয়। তিনি আব্দুল করিমও নন, করোনা আক্রান্ত রোগীও নন। সে ৭ম শ্রেণী পড়–য়া একজন ছাত্র। তার বয়স ১৪ বছর। লোকজনকে হয়রানি করা ও নিজে মজা নেয়ার হীনমানসে সে এমন মিথ্যা তথ্য প্রদান করেছে বলে সে স্বীকার করে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।
এখানেই শেষ নয়, তার মোবাইল সিডিআর পর্যালোচনায় দেখা যায় ০৬-০৪-২০২০খ্রিঃ হতে ২০-০৪-২০২০খ্রিঃ পর্যন্ত সে সরকারী টোল ফ্রি ৩৩৩ নম্বরে ৩১৬ বার, ১৬২৬৩ নম্বরে ৬৩ বার, ১০৬৫৫ নম্বরে ৪০ বার, ১০৯ নম্বরে ৩১ বার এবং ৯৯৯ এ ২৩ বার কল করে বিভিন্ন রকম বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রদান করেছেন। এরুপ কার্যের ফলে সরকারী সম্পদ ও সময় যেমন অপচয় হচ্ছে, তেমনি ভূক্তভোগী জনগণ সরকারী গুরুত্বপূর্ণ সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন। পাশাপাশি মিথ্যা তথ্য প্রদান করায় মাঠ পর্যায়ে কর্মরত পুলিশ প্রশাসনসহ দায়িত্বরত অন্যান্য সংস্থা হয়রানির শিকার হচ্ছে। অভিভাবকদের অনুরোধ করা যাচ্ছে, আপনাদের সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখুন তারা যেন মোবাইলের অপব্যবহার করে এরুপ বিভ্রান্তমূলক তথ্য প্রদান না করে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য