সৈয়দপুরে ২৪ ঘন্টায় নারীসহ দু'জনের অস্বাভাবিক মৃত্যূ


মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুরঃ

নীলফামারীর সৈয়দপুরে গত ২৪ ঘন্টায় পৃথক ঘটনায় নারীসহ দু'জনের অস্বাভাবিক মৃত্যূর ঘটনা ঘটেছে। আজ রবিবার দুপুরে ও গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় শহরের কয়াগোলাহাট আদর্শপাড়া এবং কাজিপাড়া এলাকার প্রামানিকপাড়ায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। দুইজনেই নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। 

এদের মধ্যে একজন তিন সন্তানের জননী গৃহবধূ সাহেরা বেগম সীমা (৩২) ও অন্যজন মাসুদ রানা (১৬)।  আত্মহত্যার এসব ঘটনায় সৈয়দপুর থানায় পৃথক ইউডি মামলা হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শহরের গোলাহাট আদর্শপাড়া  এলাকার মৃত. শফিউদ্দিনের মেয়ে সাহেরা বেগম সীমার সাথে (৩২) ১৪ বছর আগে কুমিল্লার মো. কামরুজ্জামানের বিয়ে হয়। ওই দম্পতির তিন ছেলে মেয়ে রয়েছে। কুমিল্লায় স্বামীর বাড়িতে ছেলেমেয়েকে নিয়ে তাঁর সংসার ভাল চলছিল। কিন্তু এক পর্যায়ে মানসিক রোগে আক্রান্ত হন গৃহবধূ সাহেরা বেগম। পরে সে সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়ি সৈয়দপুরে চলে আসেন। 

এ অবস্থায় গত  প্রায় ৪ বছর ধরে বাবার বাড়িতে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে অবস্থান করে মানসিক রোগের চিকিৎসা চালিয়ে আসছিলেন। এরই মধ্যে সাহেরার স্বামী তার কাছ থেকে সন্তানদের নিয়ে কুমিল্লা চলে যায়। ফলে তার মানসিক সমস্যা আরও বাড়তে থাকে। ঘটনার দিন আজ রবিবার সকালে তিনি বাবার বাড়িতে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। পরে সৈয়দপুর থানা পুলিশ খবর পেয়ে তাঁর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন। পরে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। 

এর আগে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় শহরের কাজিপাড়া এলাকার প্রামানিক পাড়ার মাসুদ রানা (১৬) নামের এক কিশোর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। জানা যায়, কিশোর মাসুদ রানা এক মাস আগে সিলেট থেকে এসে সৈয়দপুরে চাচার বাড়িতে অবস্থান করছিল। ঘটনার দিন গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় শয়ন কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। 

পরে পরিবারের লোকজন ডাকাডাকি করে তার সাড়া শব্দ না পেয়ে দরজা খুলে ঘরের ভিতর প্রবেশ করেন। এ সময় বাড়ির ঘরের তীরের সঙ্গে তার দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে  তাঁর আত্মহত্যার কোন কারণ জানা যায়নি। 

সে ওই এলাকার মৃত আবু তাহেরের পুত্র সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আতাউর রহমান জানান, এ দুইটি ঘটনায় থানায় পৃথক দুইটি অস্বাভাবিক মৃত্যু (ইউডি) মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে পাঠানো হয়েছে।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য