গুরুদাসপুরে শিশু ধর্ষনের চেষ্টা ঘটনায় আপোসকারী দুই মাতব্বর আটক

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
গ্রাম্য শালিশ বসিয়ে বছরের শিশু ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা আপোসকারী কয়েকজন মাতব্বরের মধ্যে দুই মাতব্বরকে আটক করেছে গুরুদাসপুর থানা পুলিশ। শনিবার দুপুর টার দিকে এস আই শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি দল উপজেলার বিভিন্ন জায়গা অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।
গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোজাহারুল ইসলাম জানান, নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের বেড়গঙ্গারামপুর বটতলা এলাকার আব্বাস প্রামানিকের ছেলে রওশন আলী কতৃক নিজ দোকানে শিশু ধর্ষন চেষ্টার ঘটনায় থানায় অবগত না করে গ্রাম্য মাতব্বর গণ সালিশের মাধ্যমে মীমাংসা করবে মর্মে বিষয়টি চেপে যান। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবগত হয়ে তদন্তে নামে থানা পুলিশ। তদন্তে জানতে পারে গ্রাম্য মাতব্বর গণ লক্ষ টাকার বিনিময়ে আপোস রফার চেষ্টা করে বাদিকে থানায় আসতে নিষেধ করে হুমকি-ধামকি প্রদান করে। ১৮ই এপ্রিল গ্রাম্য মাতব্বরের ছলচাতুরীর বিষয়টি বুঝতে পেরে বাদি থানায় এসে এজাহার দাখিল করলে গুরুদাসপুর থানার মামলা নং ১। ধারা ২০০০ সালের নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনের ()() তৎসহ পেনাল কোডের ২০১/৫০৬/৩৪ ধারায় মামলা রুজু করা হয়। এর প্রেক্ষিতে তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে গ্রাম্য মাতব্বর মান্নান, মানিক আলীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রধান অভিযুক্ত রওশনসহ বাকি মাতব্বরদেরকে আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে। এলাকাবাসি সুত্রে জানা গেছে এর আগেও চুরির মত ঘটনাও এই মাতব্বররা আপোষ মীমাংসা করেছেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের বেড়গঙ্গারামপুর বটতলা এলাকায় শিশু ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটে। বাবার জন্য পান কিনতে গিয়ে ওই পরিস্থিতির শিকার হয় মেয়েটি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য