সরেজমিন তদন্তে না গিয়ে পঞ্চগড়ে ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারের প্রতিবেদন দাখিলের অভিযোগ

মো. কামরুল ইসলাম কামু, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ 

পঞ্চগড়ে ভূমি মালিকরা নানা ভাবে হয়রানির শিকার।জেলার উপজেলা সহকারী (ভূমি) অফিসের অধিকাংশ কর্মচারিরা এ ধরনের কারসাজিতে জড়িত। এছাড়া জড়িত রয়েছে ‘ কিছু কিছ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকতা। তেতুঁলিয়ার পর এবার সরেজমিন তদন্ত না করেই আদালতে মনগড়া প্রতিবেদন দাখিল করেছে এমন অভিযোগ পঞ্চগড় সদর উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার সেলিম শাহরিয়ার বিরুদ্ধে। 

নোটিশ থেকে জানা গেছে, হেলাল উদ্দিন কর্তৃক বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত,পঞ্চগড় এ দায়েরকৃত এম আর ১১৭/২০ নং মামলার তদন্তভার উপজেলা ভূমি অফিস পঞ্চগড় সদর সার্ভেয়ার সেলিম শাহরিয়ার উপর অর্পিত। বলা হয়েছে নালিশী জমির বিষয়ে ২৬ সেপ্টেম্বর বেলা ১১ টায় ১ ম ও ২ য় পক্ষ কাগজপত্রাদি এবং নালিশী জমির নক্সাসহ জমিতে উপস্থিত থাকতে। 

সফিউল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, জমিতে ২৬ সেপ্টেম্বর উপস্থিত থাকলে সার্ভেয়ার সেলিম শাহরিয়ার সরেজমিনে না গিয়ে পরদিন ২৭ সেপ্টেম্বর আদালতে আগের প্রতিবেদন থেকেই তা নিয়ে দাখিল করে।মনগড় প্রতিবেদনের জন্যই আমরা হয়রানি ও আর্থিকভাবে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। 

ওই জমির সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানাচ্ছি। আদালতে দাখিলকৃত আরজী থেকে জানা গেছে,চলাচলের রাস্তা নিয়ে বিরোধের জেরে সফিউল্লাহ গং এর বিরুদ্ধে হেলাল উদ্দিন বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর আদালত, পঞ্চগড়ে মামলা দায়ের করেন। 

পরে ওই জমির তদন্তভার দেন ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা পঞ্চগড় সদর নজমুল হককে সরেজমিন তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করে।মনগড়া প্রতিবেদন দাখিল করলে বিবাদী নারাজী দেয়, তার পরিপেক্ষিতে আবার নতুন করে সরেজমিনে সার্ভেয়ারকে তদন্ত দেন । সার্ভেয়ার সরেজমিন তদন্ত না করেই সেই জমির তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেন।

উপজেলা ভূমি অফিস পঞ্চগড় সদর সার্ভেয়ার সেলিম শাহরিয়ার সরেজমিন তদন্ত না করেই প্রতিবেদন দাখিলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,বিজ্ঞ আদালত যেখানে সময় কম দেয় সেখানে আমার কি করার। উপায় না পেয়েই আগে গেছিলাম সেটা থেকে প্রতিবেদন দাখিল করেছি।এছাড়া কয়েকদিন ধরে বৃষ্টি ছিলো’।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) পঞ্চগড় সদর আমিনুল ইসলাস জানান,এটা একান্তই তার ব্যাপার এখানে আমার কিছু বলার নাই।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য