কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অগ্নিকান্ডে অর্ধকোটি টাকার মালামাল ভস্মীভূত

মোঃ মাসুদ রানা, কুড়িগ্রামঃ
কুড়িগ্রামের রৌমারী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৭টি দোকান ও ২টি বাড়িসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকার মালামাল ভস্মীভূত হয়েছে। সেখানে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

শনিবার (২০ জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে রৌমারী বাজারের সোনালি ব্যাংকের পূর্বপাশে আলম হাজির একটি ফুড গোডাউন ঘরে আগুনের সূত্রপাত ঘটে।

আগুনের শিখা দেখতে পেরে স্থানীয়রা দমকলকে (কর্তিমারী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন) সংবাদ দিলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দমকল বাহিনীর ১ ঘন্টা ব্যাপি চেষ্টায় পুলিশ ও বিজিবির সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

 এসময় বাড়ির লোকজনের  চিৎকারে আগুন নিভানোর জন্য এগিয়ে আসেন এলাকাবাসি ও ঘটনাস্থলের পাশেই অবস্থিত রৌমারী প্রেসক্লাবের সাংবাদিক’রা।

দীর্ঘক্ষণ পর আগুন নিভাতে সক্ষম হলেও ক্ষতিগ্রস্থ দোকান মালিক সাজু মিয়ার গোডাউন ঘরে থাকা এটিহক লি: পিকনিক কোম্পানী, প্রমান্ড, রাজা বিড়ি, ডিজিটাল বিডি ওসান লি: এর প্রায় ১২ লক্ষ টাকা, রাজু মিয়ার টাইলস, আরএফএল সামগ্রী অন্যান্য মালামালসহ প্রায় ১৩ লক্ষ টাকা, নরেশের মোবাইলের দোকান ও অন্যান্য যন্ত্রাংশসহ ২ লক্ষ টাকা, শইমী ইমরান হিকিমের দোকানে সিসি ক্যামেরার যন্ত্রাংশ ও পিকনিক কেক ও কমান্ড কয়েলসহ প্রায় ২লক্ষ টাকা, স্বপনের সেলুন ঘরে থাকা মালামাল প্রায় ৫ লক্ষ টাকা, 

মোজাফ্ফর হোসেন চায়ের দোকানে থাকা মালামাল প্রায় ৪ লক্ষ টাকা, চাপাতির এজেন্ট রবিউল ইসলামের চাপাতি ও অন্যান্য মালামালাসহ ১ লক্ষ টাকা, কনিকা মেম্বারের বসত বাড়ির আসবাপত্র ও ঘরসহ প্রায় ৪ লক্ষ টাকা, দোকান ঘর ও বাড়ির মালিক আলহাজ্ব রবিউল আলমের ঘর ও আসবাবপত্রসহ প্রায় ৮ লক্ষ টাকার মালামাল ভস্মীভূত হয়। 

এতে সব মিলিয়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকার মালামাল আগুনে পুড়ে ছাই হয়।

এব্যাপারে রৌমারী দমকলের (কর্তিমারী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন) দায়িত্বরত অফিসার ময়নুল হক বলেন, রাত সাড়ে ৮টার পর অগ্নিকান্ডের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘন্টা খানেক চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হই। 

ধারনা করা হচ্ছে বিদ্যুৎতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান জানান, সংবাদ পেয়ে  ঘটনাস্থলে যাই এবং সেখানে উপস্থিত থেকে আগুন নিভানোর সহযোগিতা করি। ক্ষয়ক্ষতির তালিকা করে সরকারি ভাবে আর্থিক সহযোগিতার চেষ্টা করবো।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য